মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

উপজেলার দর্শনীয় স্থান

১। প্রাচীনতম মন্দির

পরেশ চন্দ্র রায় চৌধুরী, দীনবন্ধু রায় চৌধুরী, সুদর্শন রায় চৌধুরী ও ধীরেন্দ্র রায় চৌধুরী কর্তৃক দানকৃত জমিতে বাশুরা গ্রামে ১৯৭২ সনে ফুলগাজী কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়। ১৯৮৮ সনে এটি সরকারী কলেজ করা হয়। কলেজের পশ্চিম পাশে রয়েছে বহু পুরানো শ্মশান ও মন্দির। বাংলা ১২৫২ সনে মন্দিরটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। আগে এ মন্দিরের পাশে প্রতিবছর মেলা বসত। বর্তমানে এখানে আর মেলা বসানো হয়না। মন্দিরের সামনে ৭ একর জমিতে একটি দীঘি রয়েছে। এখানে প্রতিবছর প্রচুর অতিথি পাখি আসে।

অবস্থান: 
ফুলগাজী।
 
২।গান্ধী আশ্রম

মোহন দাস করমচাঁদ গান্ধী(মহাত্মা গান্ধী)যার জন্ম ০২/১০/১৮৬৯ খ্রিঃ। তিনি ৩১/০৮/১৯২১ সনে প্রথম ফেনীতে আসেন। ঐদিন তিনি নতুন সুন্সির হাট সাবেক বীরেস্দ্র গঞ্জ বাজার এর খাদি প্রতিষ্ঠা করেন।

গান্ধী আশ্রম একটি জনকল্যানমুখী, অরাজনৈতিক, অসামপ্রদায়িক, মানবিক উন্নয়নমূলক প্রতিষ্ঠান। এর সামহগ্রিক কর্মকান্ড ও প্রশাসনিক পরিচালনা করার জন্য সরকার অনুমোদিত গান্ধী আশ্রম ট্রাস্ট বোর্ড রয়েছে।

গান্ধী আশ্রম ট্রাস্টের বর্তমান সচিব শ্রীমতি ঝর্ণাধারা চৌধুরী আশির সীমিত আকারে গ্রাম ভিত্তিক উন্নয়ন কর্মকান্ড শুরু করেন। বর্তমানে বৃহত্তর নোয়াখালী জেলায় এর ব্যাপক বিস্তৃতি ঘটেছে।

ফুলগাজী উপজেলায় মুন্সিরহাট ইউনিয়নে গান্ধী আশ্রম রয়েছে। এটি মুন্সিরহাট ইউনিয়ন পরিষদের পিছনে অবস্থিত। এখানে একটি তাঁত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও রয়েছে।

 

৩।দোল মন্দির-- পরেশ চন্দ্র রায় চৌধুরী, দীনবন্ধু রায় চৌধুরী, সুদর্শন রায় চৌধুরী ও ধীরেন্দ্র রায় চৌধুরী কর্তৃক দানকৃত জমিতে বাশুরা গ্রামে ১৯৭২ সনে ফুলগাজী কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়। ১৯৮৮ সনে এটি সরকারী কলেজ করা হয়। কলেজের পশ্চিম পাশে রয়েছে বহু পুরানো শ্মশান ও মন্দির। বাংলা ১২৫২ সনে মন্দিরটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। আগে এ মন্দিরের পাশে প্রতিবছর মেলা বসত। বর্তমানে এখানে আর মেলা বসানো হয়না। মন্দিরের সামনে ৭ একর জমিতে একটি দীঘি রয়েছে। এখানে প্রতিবছর প্রচুর অতিথি পাখি আসে।

 

৪। ফুলগাজী যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

ফুলগাজী-পরশুরাম সড়কের পাশে ফুলগাজী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশে ফুলগাজী যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র অবস্থিত। এটি ১৯৯২ সালে প্রতিষ্ঠিা করা হয়। ৫ একর জমির উপর এটি প্রতিষ্ঠিত। এক মাস মেয়াদী ৬০জন যুবককে প্রুতিমাসে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। বছরে ১২ টি কোর্স সম্পন্ন করা হয়। যুব উন্নয়ন ফেনী জেলার যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হিসেবে এটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। গবাদি পশু, হাস মুরগী, মৎস্য ও কৃষি বিষয়ে এখানে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এখানে প্রতি বছর বিভিন্ন ট্রেডে বহু যুবককে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। ফুলগাজী, ফেণীসহ দেশের বহু বেকার যুবক এখানে প্রশিক্ষন নিয়ে লাভবান হচ্ছে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীনে এটি পরিচালিত হয়।